ব্যবসায় শুরুর পূর্বশর্ত যা ব্যবসায় সফল হতে সাহায্য করবে

Ad

ব্যবসায় শুরুর পূর্বশর্ত যা ব্যবসায় সফল হতে সাহায্য করবে


ব্যবসায় শুরুর জন্য যেসব পূর্বশর্ত দরকার সেগুলো আলোচনা করা হল

১।লক্ষ্য নির্ধারণঃব্যবসায়ের মূল লক্ষ্য মূলত মুনাফা অর্জন কিন্তু শুধু মুনাফা অর্জনই ব্যবসায়ে মূল লক্ষ্য নয় কিছু ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান সেবার জন্য ব্যবসায় করে এজন্য প্রথমেই ব্যবসায়ের লক্ষ্য নির্ধারণ প্রয়োজন
২।সঠিক সংগঠনঃআপনি কোন ধরনের প্রতিষ্ঠান করতে চান সেটি আগে চিন্তা করতে কারণ আপনার ব্যবসায়ের পরিসর নির্ধারণ করবে  আপনি ক্ষুদ্র পরিসরে একমালিকানা করতে পারেন তার চেয়ে বড় পার্টানিশ করতে পারেন আবার কয়েকজন মিলে কোম্পানি আকারে ব্যবসায় শুরু করা যেতে পারে এজন্য সঠিক সংগঠনের ধারণা প্রয়োজন।
৩।যর্থাথ আর্থিক পরিকল্পনাঃঅর্থ ছাড়া কোনো ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান চলতে পারে না এজন্য আর্থিক পরিকল্পনা বেশি প্রয়োজন । আপনার ব্যবসার মূলধন সচরাচর নির্ভর করবে আপনার ব্যবসার পরিধি কেমন হবে এজন্য আপনার আর্থিক পরিকল্পনাটি সঠিক হওয়া প্রয়োজন । তাছাড়া আপনি ব্যবসার অর্থ কোথায় থেকে জোগাড় করবেন সেটা একটু বড় বিষয় যেমন ধরুন আপনি ব্যবসায়ার অর্থ কারো কাছ থেকে ঋণ নিতে পারেন, আপনি ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে পারেন অথবা আপনি আর্থিক যেসব প্রতিষ্ঠান অর্থ দিয়ে সাহায্য করে তাদের কাছ থেকে সাহায্য নিতে পারেন এজন্য ব্যবসায় আর্থিক পরিকল্পনা টি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ
৪।ব্যবসায়ের ধরণ ও স্থান নির্ধারণঃ ব্যবসা শুরুর অন্যতম পূর্বশর্ত হচ্ছে ব্যবসার ধরন । আপনার ব্যবসায়ের মূল লক্ষ্য কি সেটিকে নির্ধারণ করা প্রয়োজন কারণ আপনার ব্যবসাটি একমালিকানা হলে আপনাকে ক্ষুদ্র ব্যবসা করতে হবে আপনার ব্যবসাটি যদি যৌথমূলধন কোম্পানি হয় তাহলে আপনি ক্ষুদ্র ব্যবসা থেকে একটু বড় বেশি ব্যবসা করতে পারবেন । ব্যবসার ধারণা এরপরে আসে ব্যবসার স্থান নির্ধারণ আপনি ব্যবসায়ের স্থান বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ভিত্তিতে নির্ধারণ করতে পারেন তবে সেজন্য আপনাকে কিছু নির্দেশনা ফলো করতে হবে যেমন ধরুন আপনার ব্যবসাটি যদি হয়ে থাকে গ্রামীণ এলাকাভিত্তিক তবে আপনাকে অবশ্যই সেই ব্যবসাটি গ্রামীণ এলাকায় স্থাপন করতে হবে তাছাড়া যদি আপনি মনে করেন আপনার ব্যবসাটি জন্য বড় জায়গা প্রয়োজন তবে  অবশ্যই আপনার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানটি শিল্প-কারখানার অঞ্চল এলাকায় স্থাপন করতে হবে এজন্য আপনার ব্যবসায় স্থাপনের জন্য আপনার গুরুত্বপূর্ণ কাজ হিসেবে অবশ্যই ব্যবসায়ের স্থান নির্ধারণ করতে হবে
৫।বাজারজাতকরণ পদ্ধতিঃবাজারজাতকরণ পদ্ধতি একটি অন্যতম মাধ্যম ব্যবসার জন্য ধরুন আপনি আপনার ব্যবসায় প্রকিষ্ঠান স্থাপন করলেন উদ্বোধন করলেন কিন্তু আপনি বাজারজাত করছেন না এর ফলে আপনার কি হবে আপনার অতিরিক্ত প্রোডাক্ট হবে  এবং এর জন্য আপনার অতিরিক্ত প্রোডাক্ট রাখা স্থান লাগবে এইজন্য বাজারজাতকরণ অন্যতম মাধ্যমে আপনার গুদামজাতকৃত পণ্য বিক্রি করার মাধ্যমে মুনাফা অর্জন করতে পারবেন তাই বাজারজাতকরণ পদ্ধতি ব্যবসার পূর্বশর্ত হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে
৬।গবেষণাঃ গবেষণা বলতে  আমরা বুঝি আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উন্নতি কিভাবে হবে,  ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্রতিকূল পরিবেশে কিভাবে টিকে থাকবে, আপনার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান প্রতিযোগিতায় কিভাবে টিকে থাকবে এজন্য আপনার ব্যবসায়ের গবেষণা প্রয়োজন আর গবেষণা ছাড়া বর্তমান আধুনিক যুগের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান টিকে থাকতে পারে
৭।নেতৃত্বঃ  আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য আপনাকে অবশ্যই একজন নেতৃত্ব স্থানীয় ব্যক্তিকে নির্বাচন করতে হবে যিনি আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করতে পারবে অবশ্যই তিনি যেন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের  শ্রমিক এবং কর্মচারীদের পরিচালনা করতে পারে। তাদের মধ্যে সমন্বয় সাধন করতে পারেন যার ফলে আপনার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ধীরে ধীরে উন্নতি লাভ করে এবং এর ফলে আপনি প্রতিযোগিতামূলক বাজারে আপনার ব্যবসায় নিয়ে টিকে থাকতে পারবেন এবং দিনশেষে আপনি  আপনার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান থেকে অধিক মুনাফা লাভ করতে পারবেন আপনি যদি নতুন ব্যবসা করতে চান তবে অবশ্যই আপনাকে ব্যবসায়ের পূর্বশর্তগুলো মেনে চলতে হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য